Category: ওভেনের রান্না

“ভুট্টার খৈ” আধুনিক যুগে নতুন নাম পেয়ে হয়েছে পপকর্ণ। পপকর্ণ সিড বাজারে পাওয়া গেলেও অনেকেই আমরা জানিনা কিভাবে পারফেক্ট সল্টেড বাটার পপকর্ণ তৈরী করা যায়। অনেক দর্শকের অনুরোধে এখন পারফেক্ট সল্টেড বাটার পপকর্ণ তৈরী করে দেখাচ্ছি।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

পপকর্ণ তৈরীর উপকরণের পারফেক্ট অনুপাত হলো –

  1. ০.৫ কাপ পপকর্ণ সিড
  2. ১ চা চামুচ বাটার
  3. ১ চা চামুচ লবণ

এই অনুপাতে যত বেশী পপকর্ণ করতে চাইবেন, তত গুন উপকরণ দিলেই হবে।

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমাদের প্রিয়জনরা আমাদের সাথে না থাকলেও, তাদের দিয়ে যাওয়া অনেক কিছুই আমাদের সাথে থেকে যায়। এই যেমন এই তন্দুরি চিকেনের রেসিপিটি আমার বাবা আমাদের তৈরী করে খাওয়াতেন এবং এই রেসিপির সাথে জড়িয়ে থাকা অনেক স্মৃতি আমাদের সাথে শেয়ার করতেন। বাবা আমাদের মাঝে আজ নেই, কিন্তু রেসিপিটি রয়ে গিয়েছে। আর আজকে ভীষণ শান্তি লাগছে রেসিপিটি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে পেরে।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লাগছে –

  1. মুরগীর মাংস ১ কেজি
  2. টক দৈ ০.৫ কাপ
  3. সরিষার তেল ০.২৫ কাপ (মেরিনেশনে)
  4. ১ কাপ পিঁয়াজ বেরেস্তা
  5. আদা বাটা ১ টেবিল চামুচ
  6. রসুন বাটা ১ টেবিল চামুচ
  7. কাঁচা পেঁপে বাটা ১ টেবিল চামুচ
  8. শুকনো মরিচের গুঁড়ি ১ টেবিল চামুচ
  9. চিমটি পরিমাণ হলুদের গুঁড়ি
  10. ১ চা চামুচ গরম মসলার গুঁড়ি
  11. ১ চা চামুচ ভাজা জিরার গুঁড়ি
  12. ১ চা চামুচ গোল মরিচের গুঁড়ি
  13. ১ চা চামুচ লবণ
  14. ১ চা চামুচ লেবুর রস
  15. রান্নার তেল ০.২৫ কাপ (ভাজার সময়)

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

বাচ্চাদের স্কুলে কি টিফিন দেয়া যায় এ নিয়ে মা-এর টেনশনের শেষ নাই। এটা আমার চাইতে ভালো কেউ বুঝবে বলে মনে হয়না। টিফিনটা একই সাথে স্বাস্থ্য সম্মত হতে হবে এবং অনেক সময় ধরে যাতে ভালো থাকে সেই ব্যবস্থাও থাকতে হবে। কাপকেক বানিয়ে রাখলে অন্তত ৭ দিন টিফিন নিয়ে টেনশন থাকেনা। তাই তৈরী করে দেখাচ্ছি চিজ কাপকেক।

ক্রিম চিজ তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে
– ময়দা ১.৫ কাপ
– ডিম ২ টি
– চিজ ১ কাপ
– কনডেন্সড মিল্ক ০.৫ কাপ
– বাটার ১০০ গ্রাম
– চিনি ০.২৫ কাপ
– বেকিং পাউডার ১ চা চামুচ
– ভ্যানিলা এসেন্স ০.৫ চা চামুচ

আমি এখানে চ্যাদার চিজ দিয়ে করেছি। আপনারা চাইলে চ্যাদার, ইডাম, ফ্যাটা, পারমাসন চিজ দিয়ে করতে পারেন। তবে মোজারেলা চিজ দিয়ে এটা হয়না।

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমাদের চ্যানেলে সর্বোচ্চ ২য় অনুরোধ ছিলো একটা কেকের রেসিপি। চকলেট করবো না ভ্যানিলা করবো এই চিন্তা করতে করতে মাথায় আসলো রেড ভ্যালভেট কেকের কথা। এই কেকটাতে একসাথে চকলেটের টেস্ট এবং ভ্যানিলার ফ্লেভার পাওয়া যায়। খেতে খুবই মজা লাগে কেকটি, তাই আমার দর্শকদের জন্য প্রথম কেকের রেসিপি হিসেবে নিয়ে আসলাম রেড ভ্যালভেট কেক।

রেড ভ্যালভেট কেক তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে

  • কেকের ব্যাটার তৈরী করতে
    1. ২০০ গ্রাম বাটার
    2. ২ টি ডিম
    3. ২ কাপ চিনি
    4. ২ টেবিল চামুচ কোকো পাউডার
    5. ২ চা চামুচ ভ্যানিলা এসেন্স
    6. ২.৫ কাপ ময়দা
    7. ২ চা চামুচ বেকিং সোডা
    8. ২ কাপ বাটার মিল্ক
    9. ২ টেবিল চামুচ লাল রঙ (আমি বিট-এর রঙ নিয়েছি)
  • ক্রিম চিজ ফ্রস্টিং তৈরী করতে
    1. ২ কাপ আইসিং সুগার
    2. ২০০ গ্রাম বাটার
    3. ১ কাপ ক্রিম চিজ
    4. ১ টেবিল চামুচ ভ্যানিলা এসেন্স

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ভীষণ সিম্পল একটা ডেসার্ট তৈরী করছি, “ক্যারামেল ফ্ল্যান।”

উৎসব আনন্দের সময় মিষ্টান্ন বা ডেসার্ট তৈরী করতেই হয়, নাহলে রাঁধুনীদের ষোল কলা পুর্ণ হয়না। আর ঈদের মতো একটা আনন্দের সময় আমরা সবাই চাই পরিবার পরিজনের সাথে হৈ চৈ করে সময় অতিক্রম করতে, আর সেই সময়গুলিতে খুব কম মানুষই আছে যারা পরিবার পরিজন রেখে রান্নাঘরে সময় দিতে চায়। কিন্তু রান্না-বান্নার হাত থেকেতো আর রেহাই পাওয়ার উপায় নেই। তারপরও অল্প সময়ে যদি সুস্বাদু কিছু তৈরী করা যায়, তাহলেতো সোনায় সোহাগা। ক্যারামেল ফ্ল্যান তৈরী করার বেশ কিছু উপায় আছে, তবে আমি আমার বাসায় সবসময় এটাই তৈরী করি। ক্যারামেল ফ্ল্যান বিদেশী রেসিপি হলেও যেহেতু তৈরী করা অনেক সহজ, সময় অনেক কম লাগে এবং চুলার উপরে কাজ খুবই কম, তাই আমি পরামর্শ দেবো ঈদের মতো উৎসব আনন্দের সময় পরিবারকে বেশী সময় দিন আর এরকম ডেসার্ট তৈরী করুন। আপনার কাজ কম হবে আর সবাই প্রসংশাও করবে। 🙂

দেখি তৈরী করার প্রক্রিয়া –

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

ক্যারামেল ফ্ল্যান তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. ১ কাপ ফুল ক্রিম দুধ
  2. ৪ টা ডিম
  3. ১ কাপ মিল্ক ক্রিম
  4. ১ কাপ কনডেন্সড্ মিল্ক
  5. চিনি ১ কাপ
  6. ১ চা চামুচ ভ্যানিলা অ্যাসেন্স

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক https://fb.com/rumanaranna পেজে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

পশ্চিম বিশ্বের পাশাপাশি পিৎজা আমাদের দেশেও ভালো কদর পেয়েছে। আর সেই পিৎজা খেতে যদি রেস্টুরেন্টে যেতে না হয়, তাহলেতো মনেহয় সোনায় সোহাগা। পিৎজা তৈরী করা অনেকেই অনেক কঠিন মনে করে থাকেন। এটা ঠিক যে রেস্টুরেন্টের বড় বড় ওভেনে যে পিৎজা সেটা হয়তো বাসায় সহজে তৈরী করা যাবেনা। তবে আমরা বাসায় যেটা করতে পারি, সেটাইবা কম কিসের! বিশ্বাস হলোনা?

তৈরীর প্রণালীটি দেখলে বিশ্বাস হবে:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

টুনা মাছের পিৎজা তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. ময়দা ২ কাপ
  2. টুনা মাছ ১ ক্যান (প্রায় ২০০ গ্রাম)
  3. চিনি ১ চা চামুচ
  4. লবণ ১ চা চামুচ
  5. ইস্ট ১ চা চামুচ
  6. ডিম ১ টি
  7. অলিভ ওয়েল
    1. আটা খামীর করতে ২ টেবিল চামুচ
    2. বিভিন্ন সময় প্রয়োজন মতো
  8. ১টা গোটা রসুনের কুঁচি
  9. টমেটো পিউরি ৪ টেবিল চামুচ
  10. মোজারেলা চিয ২০০ গ্রাম
  11. ক্যাপসিকাম প্রয়োজন মতো
  12. পেঁয়াজ প্রয়োজন মতো
  13. গোল মরিচের গুঁড়ি প্রয়োজন মতো
  14. পাপড়িকা পাউডার প্রয়োজন মতো

আরেকটা কথা। আমি যে টমেটো পিউরি দিয়েছি, আপনাদের হাতের কাছে না থাকলে টমেটো সস বা চিলি সস ব্যবহার করতে পারেন। ভিডিওতে যেরকম বলেছি যে এটার টপিং-এর বাঁধা ধরা সেরকম কোনো নিয়ম নেই, তাই আপনাদের যেরকম ভালো লাগে সেরকম করে তৈরী করুন। 🙂

পশ্চিমের আরও একটা সুস্বাদু খাবার টোয়াইস বেইকড্ পটেটো। কোনো বাড়তি ঝামেলা ছাড়াই তৈরী করা যায় এই টোয়াইস বেইকড্ পটেটো। চলুন চট্‌পট্ শিখে নি কিভাবে তৈরী করা যায় টোয়াইস বেইকড্ পটেটো –

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. ৩ টা বড় আলু
  2. প্রয়োজন মতো গোল মরিচের গুঁড়ি
  3. প্রায় ৫০ গ্রাম চিজ
  4. প্রায় ৩ টেবিল চামুচ বাটার
  5. আধা চা চামুচ পাপড়িকা পাউডার
  6. আধা চা চামুচ লবণ

খুব মজাদার একটা খাবার এগ মাফিন। চট্ পট্ গেস্টদের আপ্যায়ন করতে বা বাচ্চার স্কুলের টিফিনে এগ মাফিন একটা ভালো আইটেম। মাত্র পাঁচ মিনিটে শিখে নিন এগ মাফিন তৈরীর প্রক্রিয়া:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

৬টি এগ মাফিন তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. ৩টি ডিম
  2. প্রয়োজন মতো ক্যাপসিকাম
  3. প্রয়োজন মতো টমেটো
  4. প্রয়োজন মতো পেঁয়াজ
  5. প্রয়োজন মতো চিকেস সসেজ
  6. প্রয়োজন মতো ধনে পাতা কুঁচি
  7. আধা কাপ দুধ
  8. প্রয়োজন মতো চিজ
  9. প্রয়োজন মতো গোলমরিচ গুঁড়ি
  10. আধা চা চামুচ লবণ
  11. আধা চা চামুচ বেকিং পাউডার
  12. প্রয়োজন মতো রান্নার তেল

নান রুটি প্রিয় নয়, এরকম মানুষ পাওয়া কঠিন হবে। আর সেই নান রুটি যদি বাসায় বসেই তৈরী করা যায়, তাহলেতো সোনায় সোহাগা। ঝট্‌পট্ দেখে নিন কনভেকশন ওভেনে গার্লিক নান তৈরীর প্রক্রিয়া।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে:

  1. ৩ কাপ ময়দা
  2. ৩ টেবিল চামুচ টক দৈ
  3. আন্দজ মতো বাটার
  4. আধা চা চামুচ বেকিং পাউডার
  5. ৪/৫ কোয়া রসুন
  6. আধা চা চামুচ লবণ
  7. এক চা চামুচ চিনি
  8. দুই টেবিল চামুচ রান্নার তেল

তৈরী করেছি ওয়েস্টার্ন ফুড জ্যাকেট পটেটো। জ্যাকেট পটেটো অনেকভাবে খাওয়া যায়, মেইন ডিস হিসেবে বা স্টেক জাতীয় খাবারের সাথে সাইড ডিস হিসেবে। যেভাবেই খাই, তৈরী – পরিবেশন – খাবারের প্রক্রিয়াটি শেষ করতে হবে গরম গরম। তার আগে দেখি তৈরীর প্রক্রিয়া-

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লাগছে:

  1. প্রয়োজন মতো আলু
  2. প্রয়োজন মতো গোল মরিচের গুঁড়ি
  3. প্রয়োজন মতো চিজ
  4. প্রয়োজন মতো বাটার
  5. প্রয়োজন মতো লবণ
  6. প্রয়োজন মতো রান্নার তেল