Category: আচার

আমার অগনিত দর্শকের অনুরোধ ছিলো কিভাবে সহজে জলপাইয়ের আচার তৈরী করা যায় যাতে রোদে দিতে না হয় এবং অল্প সময়ে তৈরী করা যায়। খুব সহজেই তেরী করে দেখাচ্ছি একদম ফ্রেশ জলপাই দিয়ে রোদ না লাগিয়ে জলপাইয়ের আচার।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লাগছে –

  1. ১ কেজি জলপাই
  2. ১ কাপ সরিষার তেল
  3. ১ কাপ চিনি
  4. ১ টেবিল চামুচ রসুন বাটা
  5. ১ টেবিল চামুচ আদা বাটা
  6. ২ টেবিল চামুচ সরিষা বাটা
  7. ১ চা চামুচ শুকনো মরিচের গুঁড়ি
  8. চিমটি পরিমাণ হলুদের গুঁড়ি
  9. ১ চা চামুচ লবণ
  10. ভিনেগার ০.২৫ কাপ
  11. পাঁচফোড়ন ১ চা চামুচ : https://youtu.be/uTHLBVggdVs
  12. আধাভাঙ্গা শুকনো মরিচের গুঁড়ি ১ চা চামুচ
  13. ভাজা জিরার গুড়ি ১ চা চামুচ
  14. শুকনো মরিচ ৪/৫ টি

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

কতবেল, কদবেল বা কৎবেল। যে নামেই ডাকেন না কেনো অসাধারণ গুণাবলী রয়েছে এই ফলটির মধ্যে। অনেকরকম এসিডের কারণে ফলটি কিন্তু সাধারণত শুধু শুধু খাওয়া যায়না। থেকে হয় চাটনি বা আচার তৈরী করে। তবে যদি খাওয়ার অভ্যাস থাকে তাহলে অনেক অনেক উপকার পাওয়া যায়।

আমি যতগুলি আচার তৈরী করতে জানি, তার মধ্যে সবচাইতে সহজ আচার হলো কৎবেলের টক ঝাল মিষ্টি আচার। একবার দেখলেই বুঝতে পারবেন তৈরী করা কত্ত সহজ। আর তৈরী করা যেমন সহজ, সংরক্ষণ করাও তেমনি সহজ, কারণ এই আচারটি সহজে নষ্ট হয়না। আমি কখনো এই আচারটিতে ছাতা/ফাঙ্গাস ধরতে দেখিনি। চলুন তৈরী করার প্রক্রিয়া দেখি –

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লাগছে –

  1. পাকা কৎবেল ৪ টি
  2. সরিষার তেল ১ কাপ
  3. পাঁচ ফোঁড়ন ১ টেবিল চামুচ
  4. শুকনো মরিচ ৭/৮ টি
  5. রসুন বাটা ১ চা চামুচ
  6. শুকনো মরিচের গুঁড়ি ১ টেবিল চামুচ
  7. বিট লবণ ১ চা চামুচ
  8. ধনে গুঁড়ি ১ চা চামুচ
  9. টেলে নেয়া বা ভেজে নেয়া জিরা গুঁড়ি ১ টেবিল চামুচ
  10. সাদা ভিনেগার ০.৫ কাপ
  11. চিনি ১.৫ কাপ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ছাত্রজীবনে কুরবানী ঈদের পরে যখন হোস্টেলে ফিরতাম, মন খারাপ হতো যে কুরবানীর মাংস ঠিক মতো খেতে পারলাম না। সেজন্য আমি হোস্টেলে ফেরার সময় আম্মু বৈয়মে করে নানুমনির রেসিপিতে এই আচারটি সাথে বেঁধে দিতো। আমার মনে হলো আমার অনেক দর্শক আছে যারা আমার মতো পরিবারের সাথে ঈদ করে ফিরে আসবে হোস্টেলে, অনেকেই দেশে ঈদ করে তাড়াহুড়ো করে ফিরে যাবে প্রবাসে নিজের কর্মস্থলে। আর এই রেসিপিটি তাদের জন্যই নিয়ে আসলাম এখন।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লাগছে –

  • সেদ্ধ করতে
    1. গরু বা খাসির ২ কাপ মাংস
    2. আদা বাটা ১ চা চামুচ
    3. রসুন বাটা ১ চা চামুচ
    4. ধনে গুঁড়ি ১ চা চামুচ
    5. শুকনো মরিচের গুঁড়ি ০.৫ চা চামুচ
    6. লবণ ০.৫ চা চামুচ
    7. চিমটি পরিমাণ হলুদের গুঁড়ি
  • বাগার দিতে
    1. সরিষার তেল ২ কাপ
    2. পাঁচফোড়ন ০.৫ চা চামুচ, রেসিপির ভিডিও
    3. ০.৫ কাপ রসুনের কোয়া
    4. ১৫ টি শুকনো মরিচ
    5. ১ টেবিল চামুচ সরিষা বাটা
    6. ১ টেবিল চামুচ ভিনেগার
    7. গরম মসলার গুড়ি ০.৫ চা চামুচ
    8. পাঁচফোড়ন গুঁড়ি ০.৫ চা চামুচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আচারের প্রতি আমাদের সবারই মোটামুটি একটা ভালো ফ্যান্টাসি আছে। অনেকরকমের আচারের মধ্য থেকে এই ব্যস্ত জীবনে শুধু সেগুলিই টিকে আছে যেগুলি তৈরী করতে ঝামেলা কম। আমের কাশ্মীরি আচারটি তার মধ্যে অন্যতম। যদি অথেন্টিক বা একদমই ট্রেডিশনাল নিয়মে করতে যাই, তারপরও ঝুট-ঝামেলা এক্কেবারে কম। শুধু নিয়ম মাফিক সবকিছু করলেই হলো।

তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লাগছে –

  1. কাঁচা আম ২ কেজি
  2. চিনি ৩ কেজি
  3. খওয়ার চুন ০.৫ কেজি
  4. ১৫/১৬ টি শুকনো মরিচ
  5. আদা কুচি ০.৫ কাপ
  6. ভিনেগার ০.২৫ কাপ
  7. ০.৫ চা চামুচ লবণ
  8. আচার রান্নার সিরা তৈরী করতে পানি ৬ কাপ

বিঃদ্রঃ চুন না পেলে ২ কেজি আম ০.৫ কেজি লবণ দিয়ে ভেজাতে পারেন। যদি ভাবেন আমটা নোনতা হয়ে যাবে কি-না, না নোনতা হবে না। ৫ ঘন্টা ভেজানোর পরে ধুয়ে ফেললে আমের টকের সাথে লবণের নোনতা ভাব দুটোই চলে যাবে।

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আচার তৈরী করার প্রসেস অনেক বলে আমরা অনেকই ভয় পাই। এখন এমন একটা আচার দেখাচ্ছি যেটাতে আমে রোদ দিতে হবেনা, এমনকি আচার তৈরী কারা পরেও রোদে রাখার প্রয়োজন নাই, প্রয়োজন নাই ফ্রিজে করে সংরক্ষণ করার। এয়ার টাইট বক্সে করে ফ্রিজে না রেখে অনায়াসে ৩ মাস সংরক্ষণ করতে পারবেন এই আচার।

তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে

  1. কাঁচা আম ২ কেজি (চেষ্টা করবেন আঁটি শক্ত হয়েছে এরকম আম নিতে)
  2. চিনি ৬ কাপ
  3. সরিষার তেল ১ কাপ
  4. সাদা ভিনেগার ০.২৫ কাপ
  5. গরম মশলার গুঁড়ি ২ চা চামুচ
  6. পাঁচ ফোড়ন গুঁড়ি ২ চা চামুচ
  7. লবণ ২ চা চামুচ (আম বেশী টক হলে একটু বেশী লবণ দিতে পারেন)

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমার ধারণা রান্না করা ছাড়া ট্রেডিশনাল যতগুলি আচারের রেসিপি আছে, তার মধ্যে এই জলপাইয়ের আচারের রেসিপিটি সবচাইতে প্রসিদ্ধ এবং জনপ্রিয়। আমাদের দেশে যেহেতু শীতের শুরুর দিকে জলপাই বাজারে আসে, তাই আচারটা করার জন্য এই সময়টাও সবচাইতে পারফেক্ট। শীতে বৃষ্টি হয়না, আচারটাও ভালোমতো রোদে দেয়া যায়। এখানে বলে রাখি যে এই আচারটা ফ্রোজেন জলপাই দিয়ে ভালো হয়না। প্রবাসী যারা ফ্রোজেন জলপাই দিয়ে আচারটা করতে চান, গৃষ্মকালে ফ্রোজেন জলপাইগুলি রুম টেম্পারেচারে এনে হলুদ, লবণ, মরিচ মাখিয়ে একটু বেশী সময় রোদে রাখবেন।

গোটা জলপাইয়ের ট্রেডিশনাল আচার তৈরীর পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. ১ কেজি জলপাই (বড় সাইজের)
  2. ০.২৫ চা চামুচ হলুদের গুঁড়ি
  3. ০.৫০ চা চামুচ মরিচের গুঁড়ি
  4. ১০ সেন্টিমিটার আদা
  5. সাদা সরিষা ২ টেবিল চামুচ
  6. ভিনেগার ০.২৫ কাপ
  7. সরিষার তেল ২ কাপ
  8. লবণ
    • মশলা তৈরী করতে ১ চা চামুচ
    • জলপাই মাখাতে ১ চা চামুচ
  9. গোটা শুকনো মরিচ –
    • মশলা তৈরীতে ৫/৬ টি
    • আচারের মধ্যে ৮/১০ টি
  10. পাঁচ ফোঁড়ন গুঁড়ি ১ টেবিল চামুচ
  11. রসুন
    • মশলা তৈরীতে ১টা গোটা
    • আচারের মধ্যে ১টা গোটা

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমলকীর গুণের কথা আমরা অনেকেই জানি। আমলকী ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করে, রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধ করে, স্মৃতিশক্তি বাড়ায়। মধুরও রয়েছে অনেক স্বাস্থ্যকর গুণ। মধুর মধ্যে আমলকী মিশিয়ে খেলে, এটি আরো অনেক উপকারী হয়ে উঠে। এতে আমলকীর স্বাদও বেড়ে যায়। মধু ও আমলকী একসাথে খেলে খাদ্যগুণগুলোও একসাথে পাওয়া যায়।

চলুন দেখি আমলকীর মোরব্বা তৈরীর পদ্ধতি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

আমলকীর মোরব্বা তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. আমলকী ৫০০ গ্রাম
  2. লবণ প্রয়োজন মতো
  3. ১ কাপ মধু
  4. ২ টি শুকনো মরিচ
  5. ১ টেবিল চামুচ আদা কুচি
  6. লেবুর রস ০.৫ কাপ
  7. ১ টুকড়ো ফিটকিরি

লাইফস্টাইল ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই জানিয়েছে আমলকী ও মুধ একসঙ্গে খেলে কী উপকার হয়:

  • লিভার ভালো রাখে
    মধু ও আমলকী একসাথে খেলে লিভারের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। এটি লিভার থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে। এটি লিভারের কার্যক্ষমতা ভালো করতে সাহায্য করে।
  • বার্ধক্যের চিহ্ন প্রতিরোধ করে
    মধুর মধ্যে আমলকী মিশিয়ে খেলে ত্বক বুড়িয়ে যাওয়ার গতিকে ধীর করে। এই উপকার পেতে মিশ্রণটি প্রতিদিন এক চা চামচ করে খেতে হবে। এটি বলিরেখা দূর করতেও সাহায্য করে।
  • অ্যাজমা প্রতিরোধ করে
    মধুর মধ্যে আমলকী ভিজিয়ে খেলে অ্যাজমা, ব্রঙ্কাইটিস এবং অন্যান্য শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা অনেকটাই কমে। এরমধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, এটি ফুসফুস থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে এবং ফ্রি রেডিকেলস দূর করতে সাহায্য করে। এটি ফুসফুসের নালীকে সরু করে দেয় এবং অ্যাজমার আক্রমণ প্রতিরোধ করে।
  • কফ, ঠান্ড প্রতিরোধ করে
    কফ, ঠান্ডা এবং গলার সংক্রমণ প্রতিরোধে এই মিশ্রণ বেশ সাহায্য করে। ঠাণ্ডার সময় এক টেবিল চামচ আমলকী ও মধুর মিশ্রণ খেলে আরাম পাওয়া যায়। এর সাথে একটু আদার রস মেশাতে পারেন। আমলকী ও মধু গলার সংক্রমণের সাথে লড়াই করে।
  • হজমের সমস্যা সমাধানে
    এসিডিটি আর হজমের সমস্যা সমাধানে আমলকী ও মধু খুব ভালো উপাদান। এটি খাবার ভালোভাবে হজমে সাহায্য করে। এটি কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধেও সাহায্য করে।
  • শরীরের বিষাক্ত পদার্থ দূর করে
    আমলকী ও মধুর মিশ্রণ শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে এই মিশ্রণ খেলে অন্ত্র ও রক্তের বিষাক্ত পদার্থ দূর হয়।
  • কীভাবে তৈরি করবেন
    একটি মাঝারি আকৃতির বয়ামে অর্ধেক পরিমাণ মধু নিন। এর মধ্যে কয়েকটি আমলকী দিন। বয়ামের মুখ বন্ধ করে দিন। কিছুদিন পর দেখবেন আমলকী নরম হয়ে গেছে। এটি অনেকটা জ্যামের মতো হয়ে যাবে। মিশ্রণটি প্রতিদিন সকালে খেতে পারেন। তবে যেকোনো খাবার নিয়মিত খাওয়ার আগে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আচারের নাম শুনে জিভে পানি আসেনা এরকম মানুষ খুঁজে পাওয়া একটু কষ্টকর। আমার চ্যানেলে আমি বেশ কিছু আচার দেখিয়েছি ইতিমধ্যে, আর আচারগুলি দেখার পরে অসংখ্য অনুরোধ পেয়েছি নতুন নতুন আচারের রেসিপি দেখানোর জন্য। তার মধ্যে তেঁতুলের অনুরোধ সবচাইতে বেশী! আমার ধারণা তেঁতুলের আচারটা আচারপ্রেমীদের কাছে একটু বেশিই জনপ্রিয়। তেঁতুল দিয়ে বেশ কয়েক রকমের আচার তৈরী করা যায়, তার মধ্যে টক মিষ্টি আচারটাই বেশী জনপ্রিয়। তাই দেরী না করে দেখাচ্ছি তেঁতুলের টক মিষ্টি আচারের রেসিপি।

চলুন দেখি তেঁতুলের টক মিষ্টি আচার তৈরীর পদ্ধতি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তেঁতুলের টক মিষ্টি আচার তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. তেঁতুল ১ কেজি
  2. গুঁড় ২ কাপ
  3. সরিষার তেল ১ কাপ
  4. প্রয়োজন মতো শুকনো মরিচ
    • গোটা ৫ টি
    • টেলে গুঁড়ি করা ২ টেবিল চামুচ
  5. গোটা ধনে ২ চা চামুচ
  6. গোটা জিরা ১ চা চামুচ
  7. পাঁচ ফোঁড়ন ১ চা চামুচ
  8. লবণ ২ চা চামুচ
  9. ভিনেগার ১ টেবিল চামুচ

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আচারের নাম মুখে নিলে কার না মুখে পানি আসে!! আমার মা-খালাদের দেখেছি গোটা আমড়া দিয়ে আচার করতে, কিন্তু আমার কাছে ওটা খাওয়া বেশ ঝামেলার মনে হয়। তাই একটু আলাদাভাবে তৈরী করলাম আমড়ার আচার। খেতে এত অসাধারণ হয়েছে যে আমার আব্বু বসে দু’দিনে সব খেয়ে ফেলেছে। আমার বিশ্বাস আপনাদেরও এই রেসিপিটি অনেক অনেক ভালো লাগবে। 🙂

চলুন দেখি আমড়ার টক ঝাল মিষ্টি আচার তৈরীর পদ্ধতি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

টক ঝাল মিষ্টি তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. আমড়া ১ কেজি
  2. সরিষার তেল ২ কাপ
  3. সাদা সরিষা বাটা ২ টেবিল চামুচ
  4. রসুনের কোয়া ০.৫ কাপ
  5. ১ কাপ গুঁড়
  6. তেঁতুল ২ টেবিল চামুচ
  7. তেঁজ পাতা ২ টি
  8. পাঁচ ফোঁড়ন ০.৫ চা চামুচ
  9. রসুন বাটা ১ চা চামুচ
  10. আদা বাটা ১ চা চামুচ
  11. ১ চা চামুচ শুকনো মরিচের গুঁড়ি
  12. ভিনেগার ২ টেবিল চামুচ
  13. শুকনো মরিচ ১০/১২ টি
  14. ভাজা মৌরী গুঁড়ি ১ চা চামুচ
  15. লবণ ২ চা চামুচ

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক https://fb.com/rumanaranna পেজে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

সিলেটে নাগা মরিচ, কোথাও ভূত জলোকিয়া, কোথাও ভূত মরিচ নামে পরিচিত এই বোম্বাই মরিচ আসলে তিব্র ঝাল যুক্ত মরিচেরই একটা প্রজাতি। তবে যতই ঝাল হোকনা কেনো, এই মরিচ দিয়ে বেশ কয়েকরকমের রেসিপি প্রচলিত আছে আমাদের দেশে। তারই একটি হলো, “কাঁচা আম দিয়ে বোম্বাই মরিচের স্পাইসি আচার।” জলপাই/চালতা/আমের আচারের মতো সবসময় খাওয়া না গেলেও যখন শরীর ভালো থাকেনা, শর্দি-কাশি-জ্বর লেগে থাকে, মুখে খাবারের কোনো রুচি থাকেনা কিছু খেতে ভালো লাগেনা। তখন এই আচারটি টনিকের মতো মুখের স্বাদ ফেরাতে কাজ করে। অনেকে বলে এর ঝালের তেজে জ্বর-শর্দি পর্যন্ত পালিয়ে যায়।

যাই হোক, আচারটি তৈরী করা কিন্তু ভীষণ সহজ। দেখেনি তৈরী করার প্রক্রিয়া।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

কাঁচা আম দিয়ে বোম্বাই মরিচের স্পাইসি আচার তৈরী করতে যা যা লাগছে –

  1. কুঁচি করে নেয়া কাঁচা আম ১ কাপ
  2. বোম্বাই মরিচ ১৫ টি
  3. সরিষার তেল ০.৫ কাপ
  4. সরিষা বাটা ১ টেবিল চামুচ
  5. রসুন বাটা ১ টেবিল চামুচ
  6. গরম মশলার গুঁড়ি ১ চেবিল চামুচ
  7. লবণ ২ চা চামুচ
  8. চিনি ১ কাপ
  9. রসুন ১ টা
  10. পাঁচ ফোড়ন গুঁড়ি ১ চা চামুচ
  11. সাদা ভিনেগার ০.৫ কাপ

আরেকটু বলে রাখি, আমাদের বোম্বাই মরিচ কিন্তু পশ্চিমের Tabasco sauce থেকে ৪০১.৫ গুণ বেশী ঝাল! সাবধান 🙂