Category: ভর্তা

কালোজিরার গুরুত্ব সম্পর্কে কম বেশী আমরা সবাই জানি। কালোজিরাতে আছে ফসফেট,লৌহ ও ফসফরাস। এছাড়াও রয়েছে ক্যানসার প্রতিরোধক কেরটিন, বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধকারী উপাদান এবং অম্ল রোগের প্রতিষেধক। ইসলাম ধর্মমতে কালিজিরা সকল রোগের ওষুধ। এর কারণ, একটি বিশুদ্ধ হাদীসে নবী মুহাম্মদ (সাঃ) কালিজিরাকে মৃত্যু ছাড়া সকল রোগের ঔষধ হিসেবে স্পষ্ট ও সুনির্দিষ্টভাবে নির্দেশ করেছেন। তো এই কালোজিরা দিয়েই তৈরী করে দেখাচ্ছি একটা সুন্দর ভর্তা।

কালোজিরা ভর্তা তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. ০.৫ কাপ কালোজিরা
  2. কাঁচা মরিচ ৩/৪ টি
  3. শুকনো মরিচ ৩/৪ টি
  4. পেঁয়াজ কুচি ০.৫ কাপ
  5. ১ টি বড় রসুন
  6. সরিষার তেল ১ টেবিল চামুচ
  7. লবণ ০.৫ চা চামুচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আবারও একটা ভর্তা নিয়ে আসলাম আপনাদের জন্য। খুব সহজভাবে আমাদের ট্রেডিশনাল সরিষা ভর্তা করে দেখাচ্ছি।

তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. সাদা সরিষা ০.৫ কাপ
  2. ১ কাপ পেঁয়াজ কুচি
  3. বড় দু’টি রসুন (প্রায় ১ কাপ)
  4. কাঁচা মরিচ ১০/১২ টি
  5. লবণ ০.৫ চা চামুচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ভর্তার প্রতি দুর্বলতাটা বাঙ্গালীর নতুন কিছু না। তবে সবচাইতে বেশী দুর্বলতা হলো হোটেলের ভর্তাগুলির প্রতি। আমাদের একটা ধারণা আছে যে হোটেলে যে ভর্তা তৈরী হয়, সেটা আমাদের পক্ষে তৈরী করা সম্ভব না। অনেক রাঁধুনী আবার বলেন যে হোটেলে ভর্তা পরিমাণে অনেক বেশী করে করা হয়, তাই টেস্ট অনেক বেশী হয়। আমরা বলবো আপনি যদি সঠিক রেসিপি জানেন, তাহলে সবকিছুই সঠিকভাবে করা সম্ভব। এখন তৈরী করে দেখাচ্ছি বাংলাদেশী হোটেলের স্টাইলে চিংড়ি মাছের ভর্তা।

ভর্তাটা তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. চিংড়ি মাছ ০.৫ কাপ
  2. পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ
  3. চিমটি পরিমাণ হলুদের গুঁড়ি
  4. লবণ ০.৫ চা চামুচ
  5. শুকনে মরিচ ৪/৫ টি
  6. রসুন কুচি ১ টেবিল চামুচ
  7. আদা কুচি ১ চা চামুচ
  8. সরিষার তেল ২ টেবিল চামুচ

পুরো প্রসেসটাই কিন্তু করতে হবে চুলোটা মাঝারি আঁচে রেখে…

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ব্যাচেলারদের জন্য আমরা সবসময়ই আমাদের চ্যানেলে সহজ এবং বৈচিত্রময় রেসিপি নিয়ে আসার চেষ্টা করি। খুব কম সময়ে তৈরী করা যায় এই সেদ্ধ ডিমের ভর্তার রেসিপিটি নিয়ে এসেছি আমাদের ব্যাচেলার দর্শকদের জন্য। বুয়ার হাতের একঘেয়ে রান্না খেতে খেতে যারা ক্লান্ত, তাদের এই রেসিপিটি খুবই পছন্দ হবে আশা করছি।

অনথন তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. ডিম ২ টি
  2. শুকনো মরিচ ৪/৫ টি
  3. ০.৫ কাপ পেঁয়াজ কুচি
  4. ১ টেবিল চামুচ সরিষার তেল
  5. ০.৫ চা চামুচ লবণ
  6. ১ টেবিল চামুচ ধনে পাতা কুচি

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ভর্তা ছাড়া বাঙ্গালী খাবারের ক্যামেস্ট্রিটা যেনো সম্পুর্ণ হয়না। এখন দেখাচ্ছি একটা দুর্দান্ত বেগুনের ভর্তা, বাংলা হোটেল স্টাইলে। ভর্তাটার নাম ভুনা বেগুন ভর্তা…

ভুনা বেগুনের ভর্তা তৈরীর পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

ভুনা বেগুন ভর্তা তৈরী করতে যা যা লেগেছে

  1. ০.৫ কেজি বেগুন
  2. ০.৫ কাপ টমেটো
  3. ০.৫ কাপ পেঁয়াজ কুচি
  4. ০.২৫ কাপ তেল
  5. ১ টা ডিম
  6. ০.৫ চা চামুচ মরিচের গুঁড়ি
  7. ০.৫ চা চামুচ গোটা জিরা
  8. ০.৫ চা চামুচ গরম মশলার গুঁড়ি
  9. ০.২৫ চা চামুচ আদা বাটা
  10. ০.২৫ চা চামুচ রসুন বাটা
  11. ২ চা চামুচ লবণ

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

টক কাঁচা আমের অনেক গুনাগুন আছে, বিশেষ করে গরমের দিনে কাঁচা আমে মানুষের তাপ সহ্য করার ক্ষমতা অনেক বাড়িয়ে দেয়। তাছাড়া গরমকালে শর্দি-জ্বর হলে কোনোকিছু খেতে ইচ্ছে করেনা, সেই ক্ষেত্রেও কাঁচা আম মুখের রুচি ফেরাতে বিশেষ ভুমিকা পালন করে।

কথা না বাড়িয়ে রেসিপি তৈরীর ভিডিওটি দেখি।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে:

  1. কাঁচা আম – ১ টি
  2. কাঁচা মরিচ – ৩/৪ টি
  3. লবণ – আধা চা চামুচ
  4. চিনি – ২ চা চামুচ
  5. সরিষার তেল – ১ টেবিল চামুচ

আবার একটা নতুন ভর্তা নিয়ে উপস্থিত হলাম আপনাদের সামনে। যেমন তেমন ভর্তা না, স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী একটা ভর্তা, চীনাবাদাম ভর্তা। চীনাবাদামের উপকারী গুন সম্পর্কে আশাকরি অনেকেই অবগত আছেন। প্রতিদিন অন্ততপক্ষে ১০ গ্রাম চীনাবাদাম খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকেরা। নিয়মিত চীনাবাদাম খেলে ক্যানসার, হৃদরোগে এবং অকালমৃত্যুর ঝুঁকি কমে। গবেষকেরা বলছেন, চীনাবাদাম ও নানা জাতের গাছ-বাদামে এমন পুষ্টি উপাদান আছে যা অনেক রোগ থেকেই আমাদের বাঁচাতে পারে। আর সেই জিনিস আমাদের বাঙালী স্টাইলে ভর্তা করে খেলেতো আর কথাই নেই!

 

আর কথা না বাড়িয়ে চলুন দেখি চীনাবাদামের ভর্তা তৈরীর প্রক্রিয়া:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. চিনা বাদাম ২৫০ গ্রাম
  2. শুকনো মরিচ ৫ টি
  3. বড় পেঁয়াজ ১ টি
  4. বড় রসুন ১ টি
  5. স্বাদ অনুযায়ী লবণ
  6. ১ চা চামুচ সরিষার তেল
  7. প্রয়োজন মতো রান্নার তেল

গরু মাংস কম-বেশী আমরা সকলেই রান্না করি এবং এমন অনেকে আছেন যারা এক ধরণের মাংস খেতে খেতে হয়তো একঘেয়ে হয়ে গেছে। সেটার মধ্যে একটা বৈচিত্র আনার জন্য আমাদের এই নিবেদন রান্না করা গরু মাংসের ভর্তা।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. রান্না করা গুরু মাংস – ২৫০ গ্রাম
  2. শুকনো মরিচ – ৫ টি
  3. আদা কুঁচি – ১ চা চামুচ
  4. রসুন কুঁচি – ১ চা চামুচ
  5. পেঁয়াজ ৪ টি – ২৫০ গ্রাম
  6. ধনে পাতা – প্রয়োজন মতো
  7. লবণ – ১ চা চামুচ
  8. সরিষার তেল – ২ চা চামুচ

অনেকেই রিকোয়েস্ট করেন যে গতানুগুতিক খাবারের বাহিরে ভিন্ন ধরণের কিছু তৈরী করে দেখাতে, যা তৈরীও করা যাবে ঝট্‌পট্ এবং খেতেও হবে একটু অন্যরকম। তাদের জন্যই এই মুরগির কলিজা ভর্তা রেসিপি।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে:

  1. রান্না করা মুরগির কলিজা ১ টি
  2. কাঁচা মরিচ ২ টি
  3. মাঝারি আকারের পেঁয়াজ ২ টি
  4. ধনে পাতা আন্দাজ মতো
  5. সরিষার তেল দেড় চা চামুচ
  6. লবণ আধা চা চামুচ

আমার মনেহয় বাঙ্গালীর শিরায় শিরায় ঢুকে আছে ভর্তা প্রীতি। মাছ ভর্তা, শুঁটকি ভর্তা, শাক ভর্তা, মাংস ভর্তা, কোন জিনিসটার ভর্তা খাইনা আমরা! আমার ভর্তা পর্বে এখন দেখাচ্ছা মাছ ভর্তা।

চলুন দেখি বাংলাদেশী স্টাইলে মাছ ভর্তা তৈরীর ভিডিও:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

সম্পুর্ণ প্রসেসে আমি মাছ ভেজে ভর্তা করে দেখিয়েছি, তবে আপনারা রান্না করা মাছ দিয়েও একই স্বাদের ভর্তা তৈরী করতে পারেন।

মাছ ভর্তা তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. মাছ – ২ টুকড়ো (২৫ গ্রাম)
  2. লবণ – মোট ১ চা চামুচ
    1. আধা চা চামুচ মাছ মাখার সময় আর
    2. আধা চা চামুচ ভর্তা করার সময়
  3. হলুদের গুঁড়ি – আধা চা চামুচের একটু কম
  4. শুকনো মরিচের গুঁড়ি – আধা চা চামুচ
  5. রান্নার তেল – মোট ৬ টেবিল চামুচ
    1. মাছ ভাজার সময় ৩ টেবিল চামুচ আর
    2. পরবর্তি প্রক্রিয়ায় ৩ টেবিল চামুচ
  6. শুকনো মরিচ – ৫ টি
  7. ৪ টা বড় আকারের পেঁয়াজ
  8. রসুন – ১ টি
  9. আদা কুঁচি – ১৫ গ্রাম
  10. সরিষার তেল – মোট ১.৫ চা চামুচ
  11. ধনে পাতা – আন্দাজ মতো