ভুল সবই ভুল

নানা মুনির নানা মত যেমন, তেমনি শরীর সুস্থ রাখা কিংবা ওজন কমানোর জন্য একেকজন একেক রকম পরামর্শ দিয়ে থাকেন। সাদা চোখে পরামর্শগুলো খুব সত্যি আর কাজের মনে হলেও কখনো কিন্তু উল্টোটাও হয়। নিচের চলতি কথাগুলো কতটা ভিত্তিহীন আসুন জেনে নিই এক নজরে। এ নিয়ে তথ্য দিয়েছেন বারডেম জেনারেল হাসপাতালের পুষ্টি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আখতারুন নাহার।

চর্বি নেই এমন খাবার শরীরের জন্য ভালো
অনেকেই মনে করে চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়া ছেড়ে দেওয়াটা খুব বুদ্ধিমানের কাজ। কিন্তু কিছু চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়াটাও যে জরুরি। শরীরে শক্তি উৎপন্নের জন্য যেমন চর্বির প্রয়োজন তেমনি টিস্যু পুনর্গঠনের জন্যও দরকার চর্বির এবং শরীরে ভিটামিন এ, ডি, ই, ও কে-এর বাহন কিন্তু চর্বি। আখতারুন নাহার জানালেন, শরীর কর্মক্ষম রাখতে, শক্তি উৎপন্নে চর্বির দরকার আছে। তবে অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত খাবার শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

না খেয়ে থাকলে ওজন কমে
না খেয়ে থাকলে দ্রুত খানিকটা ওজন কমে ঠিকই, কিন্তু সত্যিকার অর্থে এটা বরং ওজন হ্রাসে বাধা দেয়। না খেয়ে থাকলে চর্বি কমার সঙ্গে সঙ্গে মাংসপেশি এবং টিস্যুর ক্ষতি হয়। একদমই না খেয়ে ওজন কমানোর চেষ্টা করাটা কোনো কাজের কথা না। এতে শরীরে পুষ্টি ঘাটতি দেখা দেয়।

নিরামিষভোজীরা শরীরে আকর্ষণীয় পেশি তৈরি করতে পারে না
সুগঠিত মাংসপেশি আছে এমন কেউ নিরামিষভোজী এটা তো অনেকে ভাবতেই পারেন না। কিন্তু সত্যি হলো পেশি বানাতে চাইলে মাছ-মাংস খেতে হবে এমনটা কিন্তু না। পেশি গঠনের জন্য প্রয়োজন প্রোটিনের। সেই প্রোটিন যেকোনো উৎস থেকে শরীর পেলেই হলো। আখতারুন নাহারও জোর দিয়ে বললেন, ‘নিরামিষভোজীদের স্বাস্থ্য ভালো না এমনটা অনেকেই ভাবেন। কিন্তু সত্যি হলো পেশি তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানগুলো যেকোনো উৎস থেকে পেলেই হলো। ডাল, দুধ, ঘি খেয়েই কিন্তু তারা মাছ-মাংসের অভাবটা পূরণ করে ফেলতে পারে।’

কম চর্বিযুক্ত খাবার ওজন হ্রাস করে
কম চর্বিযুক্ত খাবার খেয়ে ওজনটা বাগে আনা যাবে—এমনটা কিন্তু ভাবার কোনো কারণ নেই। যা খাচ্ছেন তাতে চর্বির অংশ হয়তো কম থাকতে পারে। কিন্তু যদি ক্যালরির পরিমাণ বেশি থাকে তাহলে ওজন কমার বদলে বাড়বেই। এখানেও তাঁর একই কথা—কম চর্বিযুক্ত খাবার ওজন হ্রাস করতে পারে না। ওজন হ্রাসের জন্য সার্বিক খাবারে নজর দিতে হবে। অর্থাৎ কী ধরনের খাবার খাচ্ছি তার চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো ক্যালরি হিসাব করে খাওয়া।

চর্বিযুক্ত খাবার খেলে দ্রুত ওজন বাড়ে
চর্বিযুক্ত খাবার খেলে খুব দ্রুত ওজন বাড়ার কোনো সুযোগ নেই। ওজন বাড়ার প্রক্রিয়াটি খুব ধীর একটা পদ্ধতি। খুব চর্বিযুক্ত খাবার খেলে ওজন অবশ্যই বাড়বে তবে আস্তে-ধীরে। যাঁরা বেশ রোগা-পাতলা, তাঁরা ওজন বাড়ানোর জন্য অনেক চর্বিযুক্ত খাবার খেতে চান। কিন্তু এ সম্পর্কে আখতারুন নাহার বললেন, ওজন বাড়ানোর জন্য শুধু চর্বিযুক্ত খাবার খেলে তো হবে না। ক্যালরিযুক্ত খাবারগুলোও খেতে হবে। শুধু চর্বিযুক্ত খাবার শরীরে রোগ ডেকে আনে।

বেশি রাতে খাবার খেলে মুটিয়ে যাওয়ার ভয় থাকে
বেশি রাতে খাবার খেলে মুটিয়ে যেতে হবে এমনটা কিন্তু বৈজ্ঞানিক গবেষণায় পাওয়া যায়নি। নিজেই নিয়ম করে খেতে হবে ঠিক সময়। পুষ্টিবিদ এ সম্পর্কে বললেন, রাত কিংবা দিনে খেয়ে উঠেই ঘুমিয়ে পড়লে মুটিয়ে যাওয়ার প্রবণতা বাড়ে। বেশি রাতে খেতে পারেন কিন্তু খেয়ে উঠেই ঘুমিয়ে যাওয়া নয়। খাওয়ার পর সামান্য হাঁটাচলা করতে হবে।

উৎস: দৈনিক প্রথম আলো, তারিখ: ১৫-০১-২০১৩