Tagged: পনির

বসনিয়ার পরোটা শেয়ার করার পরে আমি রেসিপিটার ব্যাপক সাড়া পাই। বিশেষ করে আমার ফেসবুক পেজে অনেকেই পরোটাটা তৈরী করেছেন এবং ছবি শেয়ার করেছেন। আর সেই ধারাবাহিকতায় এখন দেখাচ্ছি বসনিয়ান কিমা মোগলাই পরোটার রেসিপি।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লাগছে –
পরোটার জন্য ময়দার ডো তৈরী করতে কি কি লাগবে তা বসনিয়ান পরোটার ভিডিওতে আছে। ভিডিও দেখা যাবে এই লিঙ্কে।

কিমার পুর তৈরী করতে লাগবে

  1. মাংসের কিমা ১ কাপ
  2. আদা বাটা ০.২৫ চা চামুচ
  3. রসুন বাটা ০.২৫ চা চামুচ
  4. গরম মসলার গুঁড়ি ০.২৫ চা চামুচ
  5. গোল মরিচের গুঁড়ি ০.৫ চা চামুচ
  6. পেঁয়াজ কুচি: শুরুতে ০.২৫ কাপ, শেষে ০.৫ কাপ
  7. কাঁচা মরিচ ৩/৪ টি
  8. টমেটো সস ১ টেবিল চামুচ
  9. রান্নার তেল ২ টেবিল চামুচ
  10. (সহজে গলে যায় এরকম) চিজ ৫০ গ্রাম
    আমি মোজারেলা চিজ ব্যবহার করেছি

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমরা সবসময়ই চাই বাচ্চাদের জন্য স্বাস্থ্যকর খাবার তৈরী করতে। অনেকটা সময় না খেয়ে থাকার পরে এমন কিছু দিতে যা খেলে আমরা খুব সহজেই আমাদের এনার্জি ফিরে পাই। এই চিজ বলটা একই সাথে যেমন স্বাস্থ্যসন্মত তেমনই এনার্জি ফিরে পেতে সাহায্য করবে। তৈরী করে দেখাচ্ছি শ্রিম্প চিজ বল।

তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে –

  1. চিংড়ি মাছ ৫০০ গ্রাম
  2. মোজারেলা চিজ প্রয়োজন মতো
  3. ডিমের কুসুম ১ টি
  4. কর্ণ ফ্লাওয়ার ২ টেবিল চামুচ
  5. সয় সস ১ চা চামুচ
  6. ফিস সস ২ চা চামুচ (না থাকলে ১ চা চামুচ লবণ দিয়ে দেবেন)
  7. চিনি ১ চা চামুচ
  8. গোল মরিচের গুঁড়ি ১ চা চামুচ
  9. কাঁচা মরিচ ২ টি
  10. পুদিনা পাতা ১ টেবিল চামুচ
  11. রসুন ৩/৪ কোয়া

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

বাচ্চাদের স্কুলে কি টিফিন দেয়া যায় এ নিয়ে মা-এর টেনশনের শেষ নাই। এটা আমার চাইতে ভালো কেউ বুঝবে বলে মনে হয়না। টিফিনটা একই সাথে স্বাস্থ্য সম্মত হতে হবে এবং অনেক সময় ধরে যাতে ভালো থাকে সেই ব্যবস্থাও থাকতে হবে। কাপকেক বানিয়ে রাখলে অন্তত ৭ দিন টিফিন নিয়ে টেনশন থাকেনা। তাই তৈরী করে দেখাচ্ছি চিজ কাপকেক।

ক্রিম চিজ তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে
– ময়দা ১.৫ কাপ
– ডিম ২ টি
– চিজ ১ কাপ
– কনডেন্সড মিল্ক ০.৫ কাপ
– বাটার ১০০ গ্রাম
– চিনি ০.২৫ কাপ
– বেকিং পাউডার ১ চা চামুচ
– ভ্যানিলা এসেন্স ০.৫ চা চামুচ

আমি এখানে চ্যাদার চিজ দিয়ে করেছি। আপনারা চাইলে চ্যাদার, ইডাম, ফ্যাটা, পারমাসন চিজ দিয়ে করতে পারেন। তবে মোজারেলা চিজ দিয়ে এটা হয়না।

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

বেকিং ছাড়া যে কত্ত সহজে, কত্ত মজার কেক তৈরী করা যায়, সেটা তৈরী করে না খেলে বুঝতে পারবেন না। তৈরী করছি নো বেইক ওরিও চিজকেক। আমি এখানে ওরিও বিস্কিট দিয়ে করেছি। আপনারা যে কোনো সাধারণ বিস্কিট যেমন মেরি বিস্কিট দিয়ে করতে পারেন।

নো-বেইক ওরিও চিজকেক তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে –

তৈরী করতে লেগেছে

  1. ওরিও বিস্কিট
    • কেকের বেইস তৈরী করতে ৩২ টি
    • কেকের টপিং-এর মধ্যে ৪ টি
  2. হেভি মিল্ক ক্রিম ১ কাপ
  3. বাটার ১০০ গ্রাম
  4. আইসং সুগার ০.৫ কাপ
  5. ক্রিম চিজ ৩ কাপ
  6. ভ্যানিলা এসেন্স ১ চা চামুচ

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমাদের চ্যানেলে ক্রিম চিজ তৈরী করে দেখানোর জন্য অনেক রিকোয়েস্ট ছিলো। তৈরী করে দেখাচ্ছি ঘরে বসে খুব সহজ উপায়ে ক্রিম চিজ তৈরী করার পদ্ধতি। আশাকরি রেসিপিটি আপনাদের অনেক কাজে লাগবে। এই প্রসেসে ১ লিটার দুধ দিয়ে আনুমানিক ১ কাপ ক্রিম চিজ হবে।

ক্রিম চিজ তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমাদের চ্যানেলে ক্রিম চিজ তৈরী করে দেখানোর জন্য অনেক রিকোয়েস্ট ছিলো। তৈরী করে দেখাচ্ছি ঘরে বসে খুব সহজ উপায়ে ক্রিম চিজ তৈরী করার পদ্ধতি। আশাকরি রেসিপিটি আপনাদের অনেক কাজে লাগবে। এই প্রসেসে ১ লিটার দুধ দিয়ে আনুমানিক ১ কাপ ক্রিম চিজ হবে।

ক্রিম চিজ তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমার অগনিত দর্শক আমাকে মাঝে মধ্যে অনুরোধ করেছেন বিকেল বেলায় নাশতা হিসেবে খাবার জন্য বা বাচ্চাদের স্কুলে টিফিন দেবার জন্য সহজ কিছু স্ন্যাক্সের রেসিপি দিতে। সেজন্য আমি খুবই সহজ একটা স্ন্যাক্স-এর রেসিপি দিচ্ছি, পটেটো চীজ বল। আশাকরি সবার ভালো লাগবে….

পটেটো চীজ বল তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. ১ কেজি আলু
  2. ২ টেবিল চামুচ বাটার
  3. প্রয়োজন মতো মোজারেলা চীজ
  4. ১.৫ চা চামুচ লবণ
  5. ধনে পাতা ১ টেবিল চামুচ
  6. পুদিনা পাতা ১ টেবিল চামুচ
  7. ১ চা চামুচ গোল মরিচের গুঁড়ি
  8. ১ চা চামুচ আধা ভাঙ্গা শুকনো মরিচ (শুকনো মরিচ)
  9. প্রয়োজন মতো ব্রেড ক্রাম্ব

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

একটা ভালো মিষ্টান্ন বা ডেসার্ট তৈরী করা সত্যই অনেকসময় আমাদের রাধুঁনীদের কাছে ঝামেলার মনে হয়। কিন্তু এমন কিছু সহজ মিষ্টান্ন আছে যা কোনোরকমের ঝামেলা ছাড়াই তৈরী করে ফেলা যায়। সেরকমই একটি ডেসার্ট হচ্ছে কুনাফা। কুনাফা বা কুনাফেহ্ আমাদের কাছে সেরকম পরিচিত না হলেও মধ্যপ্রাচ্যে এটা অসম্ভব জনপ্রিয়। আমার ধারণা এটা জনপ্রিয় হওয়ার একমাত্র কারণ এর সহজ প্রস্তুত প্রণালী। কুনাফেহ্ শেখার পর থেকে আমি সুযোগ পেলেই বাসায় তৈরী করে ফেলি এবং আমার বিশ্বাস এটা তৈরী করার প্রসেস একবার দেখলে আমার দর্শকরা বার বার তৈরী করে উপভোগ করবে।

চলুন দেখি কুনাফা তৈরীর পদ্ধতি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

কুনাফা তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. লাচ্ছা সেমাই ৪০০ গ্রাম
  2. বাটার ২৫০ গ্রাম
  3. ক্রিম চিজ – ২৫০ গ্রাম
  4. ঢাকাই পনির বা ফ্যাটা চিজ – ২৫০ গ্রাম
  5. চিনি – ২ কাপ
  6. গোলাপ জল – ১ টেবিল চামুচ
  7. পেস্তা বাদাম – প্রয়োজন মতো
  8. খাবারের রঙ – ৩ চা চামুচ (ঐচ্ছিক)

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

গোলাপ পিঠা আমাদের দেশের ভীষণ জনপ্রিয় একটি পিঠা, বানাতেও সহজ আবার খেতেও ভীষন মজা। আমি গতানুগতিক গোলাপ পিঠাটাকে এবার তেলে ভেজে চিনির সিরায় না ভিজিয়ে আপেল আর চিনি দিয়ে ক্যারামেলাইজ করলাম। খুবই সহজ একটা রেসিপি, অনেক জুসি, অনেক টেস্টি। ভিডিওটা দেখে অবশ্যই তৈরী করবেন আশা করছি।

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

আপেল গোলাপ পিঠা তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. ১ কাপ ময়দা
  2. আপেল ১ টা
  3. গুঁড়ো দুধ ২ টেবিল চামুচ
  4. ১ টেবিল চামুচ ঘি
  5. ১.৫ টেবিল চামুচ রান্নার তেল
  6. ক্রিম চিজ ২ চা চামুচ
  7. ৪ চা চামুচ চিনি
  8. লবণ ০.৫ চা চামুচ
  9. বেকিং পাউডার ০.৫ চা চামুচ
  10. ফ্যাটানো ডিম প্রয়োজন মতো

পশ্চিম বিশ্বের পাশাপাশি পিৎজা আমাদের দেশেও ভালো কদর পেয়েছে। আর সেই পিৎজা খেতে যদি রেস্টুরেন্টে যেতে না হয়, তাহলেতো মনেহয় সোনায় সোহাগা। পিৎজা তৈরী করা অনেকেই অনেক কঠিন মনে করে থাকেন। এটা ঠিক যে রেস্টুরেন্টের বড় বড় ওভেনে যে পিৎজা সেটা হয়তো বাসায় সহজে তৈরী করা যাবেনা। তবে আমরা বাসায় যেটা করতে পারি, সেটাইবা কম কিসের! বিশ্বাস হলোনা?

তৈরীর প্রণালীটি দেখলে বিশ্বাস হবে:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

টুনা মাছের পিৎজা তৈরী করতে যা যা লেগেছে…

  1. ময়দা ২ কাপ
  2. টুনা মাছ ১ ক্যান (প্রায় ২০০ গ্রাম)
  3. চিনি ১ চা চামুচ
  4. লবণ ১ চা চামুচ
  5. ইস্ট ১ চা চামুচ
  6. ডিম ১ টি
  7. অলিভ ওয়েল
    1. আটা খামীর করতে ২ টেবিল চামুচ
    2. বিভিন্ন সময় প্রয়োজন মতো
  8. ১টা গোটা রসুনের কুঁচি
  9. টমেটো পিউরি ৪ টেবিল চামুচ
  10. মোজারেলা চিয ২০০ গ্রাম
  11. ক্যাপসিকাম প্রয়োজন মতো
  12. পেঁয়াজ প্রয়োজন মতো
  13. গোল মরিচের গুঁড়ি প্রয়োজন মতো
  14. পাপড়িকা পাউডার প্রয়োজন মতো

আরেকটা কথা। আমি যে টমেটো পিউরি দিয়েছি, আপনাদের হাতের কাছে না থাকলে টমেটো সস বা চিলি সস ব্যবহার করতে পারেন। ভিডিওতে যেরকম বলেছি যে এটার টপিং-এর বাঁধা ধরা সেরকম কোনো নিয়ম নেই, তাই আপনাদের যেরকম ভালো লাগে সেরকম করে তৈরী করুন। 🙂