Tagged: নিরামিষ

আমাদের দেশের বড় বড় রেস্টুরেন্ট বা কাবাব হাউজগুলিতে লেয়ার করা একধরণের পরটা পাওয়া যায়। অনেকেরই ধারণা এই পরটা বাসা-বাড়িতে তৈরী করা সম্ভব না। আর তাই আমি শেখানোর চেষ্টা করছি রেস্টুরেন্ট স্টাইলে লাচ্ছা পরটা।

লাচ্ছা পরটা তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

এই পরটার জন্য আটার ডো তৈরীর রেসিপি আছে এই লিঙ্কে।

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ঝামেলা ছাড়াই মাত্র ৪৫ মিনিট থেকে ১ ঘন্টার মধ্যেই তৈরী করে ফেলা যাই এই মজাদার নারকেলের নাড়ু। কিন্তু কোনো এক অজানা কারণে চমৎকার এই রেসিপিটি আমাদের রান্নাঘর থেকে হারিয়ে গিয়েছে। বিশেষ বাঙ্গালী অনুষ্ঠান ছাড়া এই রেসিপিগুলির কথা আর শোনাই যায়না। নিজেকে খুব ভাগ্যবতী মনেহচ্ছে এই রেসিপিটি আপনাদের স্ক্রিনে আনতে পেরে। আশা করছি এই ডিজিটাল মাধ্যমে এই খাবারগুলি যুগের পর যুগ বেঁচে থাকবে।

নারকেলের নাড়ু তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. কোরানো নারকেল ২ কাপ
  2. ১ কাপ চিনি অথবা গুড়
  3. ঘি ১ টেবিল চামুচ
  4. ১ টি তেজপাতা
  5. ২ টুকরো দারুচিনি
  6. ২ টি ছোটো এলাচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

মুড়ির মোয়ার মনেহয় নতুন করে কোনো পরিচয়ের প্রয়োজন নেই। যদিও এটা এই রেসিপিটিও রান্নাঘরথেকে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে, তারপরও নিজের কাছে একটা শান্তি লাগছে যে এই রেসিপিটি যুগ যুগ ধরে আপনাদের স্ক্রিনে বেঁচে থাকবে, পরবর্তী প্রজন্ম এরকম মজার একটা রেসিপি শিখতে পারবে।

মুড়ির মোয়া তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. মুড়ি ৩ কাপ
  2. চিনি/গুড় ১ কাপ
  3. ঘি ১ টেবিল চামুচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

এখনকার রেসিপি চালের নাড়ু, মানে নারকেল চালভাজার নাড়ু। গ্রাম-বাংলার এই খাবারগুলি আজ বিলুপ্তপ্রায়। মজার মজার এই খাবারগুলি আমাদের জেনারেশনই ঠিকমতো চিনি না, আর আমাদের পরের জেনারেশন তো এক্কেবারেই বঞ্চিত থেকে যাবে এই খাবারগুলি থেকে। এই বিলুপ্তপ্রায় রেসিপিটি আপনাদের স্ক্রিনে আনতে পেরে নিজেকে অনেক ভাগ্যবতী মনে হচ্ছে।

পারফেক্ট চালের নাড়ু তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. চাল ভাজা ১ কাপ
  2. কোরানো নারকেল ২ কাপ
  3. ১ কাপ চিনি অথবা গুড়
  4. ঘি ১ টেবিল চামুচ
  5. ১ টি তেজপাতা
  6. ১ টুকরো দারুচিনি
  7. ১ টি ছোটো এলাচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ট্রেডিশনাল একটা নাশতা আমাদের রান্নাঘর থেকে অনেকটা হারিয়েই যাচ্ছে। সেটা অন্য কিছু না, আমাদের প্রিয় চাল ভাজা। অনেকেই মনে করেন চাল ভাজতে চুলার দগদগে আগুন দরকার, মাটির খোলে বালু গরম করে তৈরী করতে হয় এই চালভাজা। কিন্তু আপনাদের এখন দেখাচ্ছি কিভাবে আমাদের ঘরের সাধারণ বাসন দিয়ে তৈরী করা যায় এই ট্রেডিশনাল চালভাজা।

পারফেক্ট চালভাজা তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  • চাল ভাজতে
    1. চাল ১ কাপ
    2. লবণ ১ চিমটি
    3. পানি ১ টেবিল চামুচ
  • চাল ভাজা মাখাতে
    1. ০.৫ টেবিল চামুচ কাঁচা মরিচের কুচি
    2. সরিষার তেল ২ চা চামুচ
    3. ২ টেবিল চামুচ পেঁয়াজ কুচি
    4. চিমটি পরিমাণ লবণ
    5. ২ টেবিল চামুচ শসা কুচি
    6. ২ টেবিল চামুচ টমেটো কুচি
    7. সামান্য ধনে পাতা
    8. প্রয়োজন মতো লেবুর রস

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আবারও একটা ভর্তা নিয়ে আসলাম আপনাদের জন্য। খুব সহজভাবে আমাদের ট্রেডিশনাল সরিষা ভর্তা করে দেখাচ্ছি।

তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. সাদা সরিষা ০.৫ কাপ
  2. ১ কাপ পেঁয়াজ কুচি
  3. বড় দু’টি রসুন (প্রায় ১ কাপ)
  4. কাঁচা মরিচ ১০/১২ টি
  5. লবণ ০.৫ চা চামুচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

পারফেক্ট পরোটা! লক্ষ্য করবেন যে আমি এখানে পারফেক্ট শব্দটা ব্যবহার করেছি এই কারণে যাতে আপনাদেরই বুঝতে সুবিধা হয়। তো কি করলে হবে এই পারফেক্ট পরোটা সেটা একটু বলি। একটা পরোটা একই সাথে ক্রিসপি বা কুড়মুড়ে হতে হবে আবার একই সাথে ভেতরটা তুলতুলে হতে হবে। তৈরীর পরে অন্তত ৫-১০ মিনিট পরটাটার অবস্থা বা স্বাদে কোনো পরিবর্তন হবেনা। তবেই হবে পারফেক্ট পরোটা। অনেক রিকোয়েস্ট ছিলো এই পরোটার, আশাকরি অনেকের কাজে লাগবে আমার এই রেসিপিটি। তবে রেসিপিটি ফলো করার আগে এই লিঙ্ক থেকে এই পরোটার জন্য আটার ডো তৈরীর নিয়মটা অবশ্যই দেখে নিতে হবে।

পারফেক্ট ঘরোয়া পরোটা তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমরা সবাই চাই যাতে আমাদের তৈরী করা পরটাটা পারফেক্ট হয়, কিন্তু সব টেষ্টার শর্তেও পরটা পারফেক্ট হয়না। দেখা যায় শক্ত হয়ে গিয়েছে বা ইলাস্টিকের মতো হয়ে গিয়েছে। আবার অনেকসময় দেখা যায় তৈরীর পর পর ভালো ছিলো, কিন্তু ২ মিনিট যেতেই আবার মোটা কাগজের মতো শক্ত হয়ে গিয়েছে। তাই পরটা তৈরীর জন্য কিভাবে পারফেক্ট আটার ডো তৈরী করতে হয় তা দেখাচ্ছা।

পারফেক্ট আটার ডো তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে যা যা লাগছে…

  1. আটা ২ কাপ
  2. রান্নার তেল ১ টেবিল চামুচ
  3. গুঁড়ো দুধ ১ টেবিল চামুচ
  4. চিনি ২ টেবিল চামুচ
  5. লবণ ১ চা চামুচ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

স্টেক কিংবা ইংলিশ কাটলেটের সাথে অসাধারণ এক রকমের সস পরিবেশন করা হয়। এখন সেই ক্রিম অফ মাশরুম সসটি তৈরী করে দেখাচ্ছি।

তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে –

  1. ৬/৭ টি মাশরুম
  2. ০.৫ কাপ ক্রিম
  3. ৫০ গ্রাম বাটার
  4. ২ চা চামুচ পেঁয়জ কুচি
  5. ১ চা চামুচ রসুন কুচি
  6. স্বাদ অনুযায়ী লবণ (আমি ০.৫ চা চামুচ দিয়েছি)
  7. ০.৫ চা চামুচ গোল মরিচের গুঁড়ি

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

দিনাজপুরের খুবই ট্রেডিশনাল একটা পিঠা হলো নুনিয়া পিঠা। সিলেটে বলে নুন গড়া পিঠা, আবার ময়মনসিংহের মানুষ বলে মসল্লা পিঠা। যেখানে যে নামেই ডাকুক, পিঠাটি কিন্তু মোটামুটি হারিয়ে যেতে চলেছে আমাদের রান্নাঘর থেকে। এখন এই ঐতিহ্যবাহী রেসিপিটি আপনাদের জন্য নিয়ে আসলাম।

পিঠা তৈরী করার পদ্ধতি দেখি:

ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্ক থেকে ডেইলি মোশনেও ভিডিওটি দেখতে পারেন।

তৈরী করতে লেগেছে –

  1. চালের আটা ১ কাপ
  2. পানি ১.৫ কাপ
  3. হলুদের গুঁড়ি ০.২৫ চা চামুচ
  4. শুকনো মরিচের গুঁড়ি ১ টেবিল চামুচ
  5. কালো জিরা ০.৫ চা চামুচ
  6. লবণ ১ চা চামুচ
  7. আদা বাটা ০.৫ চা চামুচ
  8. রসুন বাটা ০.৫ চা চামুচ

চালের আটা আর গুঁড়ির মধ্যে পার্থক্য: অনেক গ্রামে ঢেঁকিতে চাল কুটে গুঁড়ি করে, যেটা হাতে নিলে দানা দানা লাগে। ওটা দিয়ে ট্রেডিশনাল ভাপা পিঠা ও চালের গুঁড়ির ফিরনী তৈরী করে। আর আটা হলো আটা, যেটায় কোনো দানা বোঝা যাবেনা।

গ্রিন সসের রেসিপি পাওয়া যাবে এখান থেকে।

তৈরী করে আমাদের ফেসবুক পেজ আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে ভুলবেন না।