২৩
মে

কলকাতা ট্রেডিশনাল স্ট্রিট ফুড আলু কাবলি – সাথে ঘরে ছোলার স্প্রাউট তৈরী এবং ফ্রোজেন করার সম্পুর্ণ নির্দেশনা

ইফতারের টেবিলে ছোলার বদলে নতুন কিছু করে প্রিয়জনকে চমকে দিতে চান! তাহলে আপনার জন্য। নিয়ে এসেছি কোলকাতার ট্রেডিশনাল স্ট্রিট ফুড রেসিপি আলু কাবলি। আর এই আলু কাবলির মধ্যে যে ছোলার স্প্রাউট ব্যবহার করেছি, সেটাও কিভাবে ঘরে তৈরী করা যায় ভিডিওতে দেখিয়ে দিচ্ছি। আলু কাবলি শুধু কোলকাতাতেই নয়, যেখানেই পশ্চিমবঙ্গের বাঙ্গালীরা আছেন, সেখানেই পাওয়া যায়। আমি দুবাইতেও আলু কাবলি খেয়েছি, আর খেতে এতো মজা হয় যে একবার খাওয়া শুরু করলে আঙ্গুল সহ চেটে খাবেন। চলুন চটপটা স্বাদের এই আলু কাবলি তৈরী করা শিখে ফেলি।

ভালো কথা, ছোলার স্প্রাউট কিন্তু ওয়েট লস করার জন্য ভালো ডায়েট হিসেবে কাজ করে। নেটে সার্চ করলে এটা সম্পর্কে অনেক জানতে পারবেন।

আলু কাবলির মসলা তৈরী করতে লাগছে –

  1. জিরা ১ টেবিল চামুচ
  2. মৌরি ১ টেবিল চামুচ
  3. ধনে ১ চা চামুচ
  4. শুকনো মরিচ ২ টি

আলু কাবলির মিক্সে লাগছে –

  1. ছোলার স্প্রাউট ০.২৫ কাপ
  2. মটর ডাল ০.২৫ কাপ
  3. আলুর টুকরো ১ কাপ
  4. লবণ ০.৫ চা চামুচ
  5. বিট লবণ ০.৫ চা চামুচ
  6. আলু কাবলির মসলা ২ চা চামুচ
  7. চিলি ফ্লেক্স ১ চা চামুচ
  8. টমেটো
  9. শসা
  10. কাঁচা মরিচ
  11. লেবুর রস
  12. তেঁতুলের কাথ
  13. ঝুরি ভাজা
  • চিলি ফ্লেক্স হলো শুকনো মরিচ শুকনো গরম তাওয়ার মধ্যে টেলে নিয়ে আধা ভাঙ্গা করে নেয়া।
  • চটপটির ডালকে অনেকে চানা ডাল, মটর ডাল বলে, আবার ডাবলি ডাল দিয়েও এই রেসিপিটি করা যায়। ডাল সেদ্ধ করার জন্য ৮-১০ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখবেন, সেদ্ধ করার সময় ১ চা চামুচের মতো বেকিং পাউডার পানিতে মিশিয়ে দেবেন, তাহলে চট করে ডাল সেদ্ধ হয়ে যাবে।
  • তেঁতুলের কাথ বা মাড় তৈরী শিখতে তেঁতুলের শরবতের ভিডিওটি দেখতে পারেন এই লিঙ্ক থেকে।

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না। শেয়ার করে আপনিও জিতে নিতে পারেন একটি সুন্দর উপহার।