১৬
সেপ্টে.

আমড়ার টক মিষ্টি আচার

টক-মিষ্টি স্বাদের দেশী ফল আমড়া। ফলটি কাঁচা খেতে বেশী ভালো লাগলেও বছরের খুব কম সময়ের জন্য পাওয়া যায় আমড়া। তাই আমরা আমড়া দিয়ে আচার, মোরব্বা, চাটনি তৈরী করে বছরজুড়ে সংরক্ষণ করি আর আমড়ার স্বাদ উপভোগ করি। এখন আমি আমড়া দিয়ে যে আচারটি তৈরী করবো, আমার মতে এটি আচার তৈরী করার সবচাইতে সহজ রেসিপি। কারণ আমি এখানে মসলা পিষবো বা গুঁড়ি করবো না, উপকরণগুলি দিনের পর দিন রোদে শুকাতে হবে না, আবার তৈরী করতে সময় লাগবে মাত্র ২০ মিনিট। মজার বিষয় হলো, আচারটি তৈরী করতে কোনো আদা রসুনও ব্যবহার করবো না। অথচ আচাটি খেতে যে কত মজা হবে, সেটা তৈরী করে না খেলে বুঝতে পারবেন না। বলা হয়ে থাকে একটি আমড়ায় প্রায় তিনটি আপেলের সমান পুষ্টি থাকে, তাই আমড়া দিয়ে আচার, মোরব্বা, চাটনি যাই তৈরী করি না কেনো, খেয়াল রাখতে হবে আচারের পুষ্টিগুণ যেনো অক্ষুন্ন থাকে। আর সেভাবেই আমি রেসিপিটি উপহার দিয়েছি।

আমড়া শরীরের জন্য অনেক উপকারী। আমড়ায় প্রচুর পরিমান ভিটামিন সি, আয়ারন, ক্যালসিয়াম এবং আঁশ আছে, যেগুলো শরীরের জন্য খুবই দরকারি। মুখে রুচি বৃদ্ধিসহ অসংখ্য গুনাগুন রয়েছে আমড়ার। আমড়ায় প্রচুর ভিটামিন সি থাকায় এটি খেলে স্কার্ভি রোগ এড়ানো যায়। বিভিন্ন প্রকার ভাইরাল ইনফেকশনের বিরুদ্ধেও লড়তে পারে আমড়া। হজমেও এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। মোট কথা আমড়া ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরণ করে, ত্বক ভাল রাখে, রক্তস্বল্পতা রোধ করে, বদহজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করে, সর্দি কাশি, ইনফ্লুঞ্জার বিরুদ্ধে কাজ করে এবং হৃদরোগ প্রতিহত করে।

তৈরী করতে লাগছে –

  1. আমড়া ১ কেজি
  2. চিনি ২ কাপ
  3. সরিষার তেল ০.৫ কাপ
  4. শুকনো মরিচ ১০/১২ টি
  5. দারুচিনি ১ টুকরো
  6. তেজ পাতা ১ টি
  7. পাঁচফোড়ন ১ চা চামুচ
  8. বিট লবণ ১ টেবিল চামুচ
  9. লবণ প্রয়োজন মতো
  10. ভিনেগার ০.২৫ কাপ

তৈরী করার অভিজ্ঞতা আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে ভুলবেন না। শেয়ার করে আপনিও জিতে নিতে পারেন একটি সুন্দর উপহার।